প্রবাসী স্বামীকে ‘শিক্ষা দিতে’ স্ত্রীর নৃশংস কাণ্ড | 1169546 | কালের কণ্ঠ | kalerkantho

প্রবাসী স্বামীকে শিক্ষা দিতে শিশুসন্তানকে মারধর। তারপর সেই দৃশ্য ভিডিও করে পাঠানো হয় স্বামীকে। পরে সেই ভিডিও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে দেন স্বামী। নির্যাতনের দৃশ্য দেখে শিশুটিকে উদ্ধার করে উপজেলা প্রশাসন ও থানা পুলিশ।

চাঁদপুরের শাহরাস্তি উপজেলার হাড়িয়া গ্রামের পারভীন আক্তার এমন কাণ্ড করেন। শিশুটির নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে বুধবার (৩ আগস্ট) দুপুরে মা-সহ ওই শিশুকে আদালতের হেফাজতে পাঠানো হয়েছে বলে নিশ্চিত করেছেন শাহরাস্তি মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আবদুল মান্নান।

শাহরাস্তি উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার কার্যালয় ও সংশ্লিষ্ট মডেল থানা পুলিশ জানিয়েছে, পারভীন আক্তারের তিন বছর আগে বিয়ে হয় কুমিল্লার মনোহরগঞ্জ উপজেলার আশিয়াদারি গ্রামের আব্দুল করিমের ছেলে প্রবাসী মহিনউদ্দিনের। তাদের সংসারে ফাহাদ (২) নামের একটি সন্তান রয়েছে।

তবে বিয়ের এক বছর পর থেকে তাদের দাম্পত্য কলহ দেখা দিলে স্ত্রী পারভীন আক্তার বাবার বাড়িতে থাকার সিদ্ধান্ত নেন। লিগ্যাল এইড চাঁদপুর কার্যালয়ে আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে ভরণপোষণ বাবদ প্রতি মাসে আট হাজার টাকা দেওয়ার সিদ্ধান্ত হয়। কিন্তু মহিনউদ্দিন ঠিকমতো সেই টাকা না দেওয়ায় সম্প্রতি পারভীন তাদের সন্তানকে নির্যাতন করে তার ভিডিও ধারণ করে স্বামীকে পাঠান।  

থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আবদুল মান্নান বলেন, ‘শিশুটিকে উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে প্রাথমিক চিকিৎসা দেওয়া হয়েছে। নিকটাত্মীয় বা সরকারি পৃষ্ঠপোষকতায় তার নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে আদালতে সোপার্দ করা হয়েছে। নির্যাতনকারী মাকে ৫৪ ধারায় আদালতে পাঠানো হয়েছে। তদন্ত সাপেক্ষে এ বিষয়ে পরবর্তী ব্যবস্থা নেওয়া হবে। ’

শাহরাস্তি উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা হুমায়ুন রশিদ বলেন, ‘সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে ভাইরাল ভিডিওর পরিপ্রেক্ষিতে রাতেই শিশুটিকে উদ্ধার করা হয়েছে। আদালতের নির্দেশনা পেলে পরবর্তী সময়ে বাকি কাজ করা হবে। ’ তিনি আরো বলেন, ‘প্রয়োজনে সরকারিভাবেই শিশুটির দায়িত্ব নেওয়া হবে। ’