এটা বঙ্গমাতার সংক্ষিপ্ত বায়োপিক | বিনোদন | দেশ রূপান্তর

জনপ্রিয় অভিনেত্রী জ্যোতিকা জ্যোতি। সম্প্রতি কাজ করেছেন বঙ্গমাতাকে নিয়ে নির্মিত শর্টফিল্মে। মুক্তির অপেক্ষায় আছে একাধিক সিনেমা। তার সঙ্গে কথা বলেছেন মাসিদ রণ

‘বঙ্গমাতা’ শর্টফিল্মটি এক কথায় বঙ্গমাতা শেখ ফজিলাতুন নেছা মুজিবের সংক্ষিপ্ত বায়োপিক। নির্মাণ করেছে সংস্কৃতি মন্ত্রণালয়। নির্মাণ করেছেন গৌতম কৈরী। এটি তার নির্মিত প্রথম চলচ্চিত্র। শ্যুটিং হয়েছে ঢাকার একটি পুরনো বাড়ি, জেলাখানাসহ মানিকগঞ্জে। আমরা সবাই চেয়েছি পুরো কাজ শেষ হলেই সবাইকে জানাতে। এখন কাজটি দর্শকের জন্য প্রস্তুত। গতকালই নির্মাতা পোস্টার ও ট্রেইলার প্রকাশ করেছেন। আগামী ৮ আগস্ট বঙ্গমাতার জন্মদিনে গণ্যমান্য অতিথিদের উপস্থিতিতে এর প্রিমিয়ার শো হবে শিল্পকলা একাডেমিতে। যেহেতু এর দৈর্ঘ্য ছোট, তাই সিনেমা হলে মুক্তি না দিয়ে টেলিভিশনে দেখানো হবে। পরে দেশের সব শিল্পকলা একাডেমি ও বিভিন্ন আয়োজনে এটির প্রদর্শনী হবে।  

বঙ্গমাতার মতো ইতিহাসের উজ্জ্বল চরিত্র, তাও আবার রাষ্ট্রীয় আয়োজনে হচ্ছে, এমন সুযোগ যে কোনো অভিনেত্রীর জন্য বড় প্রাপ্তির। তাই আমাকে প্রস্তাব দেওয়ার পর সুযোগটি লুফে নিই। শ্যুটিংয়ের জন্য হয়তো ৮-১০ দিন সময় লেগেছে, কিন্তু সর্বশেষ ৬ মাস এই কাজটির পেছনে সময় দিয়েছি। বঙ্গমাতাকে যেসব ভিডিওচিত্রে দেখা যায় তার সবই দেখেছি। তাকে নিয়ে পড়াশুনা করেছি। তার সঙ্গে সরাসরি সাক্ষাৎ করেছেন এমন অনেকের সঙ্গে কথা বলেছি। এভাবেই চরিত্রটি নিজের মধ্যে ধারণ করেছি।

অনেকেই জানেন, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে নিয়ে যে অফিশিয়াল বায়োপিক নির্মাণ করেছেন ভারতীয় নির্মাতা শ্যাম বেনেগাল, সেখানে বঙ্গমাতার চরিত্রের জন্য আমাকেই তিনি সবচেয়ে বেশি পছন্দ করেন। পরে নানা কারণে আমি ছবিটি করতে পারিনি। এক ধরনের দুঃখ, ক্ষোভ ছিল এ নিয়ে। অবশেষে আমি সরকারি আয়োজনেই বঙ্গমাতার চরিত্রটি করতে পেরেছি। মজার বিষয় হলো, শ্যাম বেনেগালের সামনে অডিশন দেওয়ার জন্য যে ছবিগুলো আমি তুলেছিলাম, সেই ছবিগুলো দেখেই সংস্কৃতি মন্ত্রণালয় আমাকে এই কাজের প্রস্তাব দেয়। বঙ্গবন্ধুর বায়োপিকে কাজ করতে না পেরে যে কষ্ট পেয়েছিলাম, সেটি হয়তো মুছে যাবে না। কিন্তু এই কাজটি করে আমি তৃপ্ত। হয়তো আমাদের বাজেট অনেক কম, কিন্তু আমি আশা করি কাজটি দর্শকের হৃদয় স্পর্শ করবে।

আমি সাধারণত কোনো কাজ শেষ না করে তা নিয়ে সংবাদমাধ্যমে মুখ খুলতে চাই না। এই যেমন ‘বঙ্গমাতা’ যখন দেখানোর জন্য প্রস্তুত, ঠিক তখনই জানিয়েছি। এরইমধ্যে কয়েকটি অনুদানের ছবি নিয়ে কথা হয়েছে। আমি এখন সেই কাজের প্রস্তুতিও নিচ্ছি। কিন্তু কাজ শেষ না করে বলতে চাই না। তবে নুরুল আতিকের ‘মানুষের বাগান’ ছবিটি মুক্তির জন্য প্রস্তুত। এছাড়া ‘অন্ত্যেষ্টিক্রিয়া’ নামে আরও একটি ছবির অর্ধেক কাজ শেষ করেছি।