ফের ইন্দ্রপতন বিনোদন জগতে, ৮২ বছর বয়সে প্রয়াত অভিনেতা বিক্রম গোখলে

সংক্ষিপ্ত

মৃত্যুকালীন বয়স হয়েছিল ৮২ বছর। বেশ কিছুদিন ধরেই বার্ধক্যজনিত সমস্যায় ভুগছিলেন তিনি।

ফের শোকের ছায়া বিনোদন জগতে। প্রয়াত কিংবদন্তী অভিনেতা বিক্রম গোখলে। মৃত্যুকালীন বয়স হয়েছিল ৮২ বছর। বেশ কিছুদিন ধরেই বার্ধক্যজনিত সমস্যায় ভুগছিলেন তিনি। গত দু'সপ্তাহে শারীরিক অবস্থার আরও অবনতি হওয়ায় হাসপাতালে ভর্তি করা হয় অভিনেতাকে। টানা ১৪ দিন লড়াইয়ের পর অবশেষে মৃত্যুর কোলে ঢলে পড়লেন বর্ষীয়ান অভিনেতা। বিক্রম গোখলের মৃত্যুতে এক অপূরণীয় ক্ষতি হয়ে গেল বলিউডের। জানা যাচ্ছে সপ্তাহ দু'য়েক আগে অভিনেতার শারীরিক অবস্থার অবস্থার অবনতি ঘটায় পুনের একটি হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। ছিলেন ভেন্টিলেশনেও। শুক্রবার রাতে হাসপাতাল সূত্রে জানানো হয় চিকিৎসায় সারা দিচ্ছেন বিক্রম। শারীরিক অবস্থারও সামান্য উন্নতি হয়েছে বলেই জানা যায়। কিন্তু শনিবার দুপুরেই এল দুঃসংবাদ। সকলে কাঁদিয়ে না ফেরার দেশে জনপ্রিয় অভিনেতা বিক্রম গোখলে।

হাম দিল দে চুকে সনম, ভুলভুলাইয়া ইত্যাদি নানা হিট ছবিতে অভিনয় করেছেন বিক্রম গোখলে। ১৯৭১ সালে পরওয়ানা ছবির হাত ধরে ফিল্ম ইন্ডাস্ট্রিতে পা রাখেন বিক্রম। প্রথম ছবি থেকেই জনপ্রিয়তা লাভ করতে থাকেন তিনি। ছোট থেকেই সাংস্কৃতিক পরিবেশে বড় হন তিনি। বিক্রম গোখলের বাবা চন্দ্রকান্ত গোখলে ছিলেন মারাঠি থিয়েটার এবং সিনেমার উল্লেখযোগ্য নাম। তাঁর ঠাকুমা কমলাবাই গোখলে ছিলেন প্রথম নারী শিশুশিল্পী। প্রপ্রিতামহী দুর্গাবাই কামাথ ছিলেন ভারতীয় সিনেমার প্রথম অভিনেত্রী। পারিবারিক ধারা বজায় রেখেই সিনেমা জগতে প্রবেশ করেন বিক্রম। থিয়েটারের সঙ্গেও যুক্ত ছিলেন তিনি। ২০১৬ সালে গলার সমস্যার জন্য পাকাপাকিভাবে মঞ্চকে বিদায় জানান গোখলে। নিজের বর্ণময় কেরিয়ারে একের পর এক হিট ছবিতে অভিনয় করে গিয়েছেন বিক্রম গোখলে।

প্রসঙ্গত, মৃত্যুর আগেই অভিনেতার মৃত্যুর ভুঁয়ো খবর রটে যায়। ঘটনায় রীতিমত শোলগোল পড়ে যায় বিনোদন জগৎ-সহ নেট দুনিয়ায়ও। পরে তাঁর পরিবারের সদস্যরা গোটা ঘটনা সামনে আনেন।