আফগানিস্তানে মেয়েদের উপর বাড়তি নিষেধাজ্ঞা চাপালো তালেবান। বিনোদন পার্কে ঢুকতে পারবে না মেয়েরা।

আফগানিস্তানে তালেবান দ্বিতীয় দফায় ক্ষমতায় আসার পর থেকে মেয়েদের উপর একের পর এক নিষেধাজ্ঞা জারি করেছে। তাদের শেষ নিষেধাজ্ঞা হলো, মেয়েরা বিনোদন পার্কে ঢুকতে পারবে না। প্রোপাগেশন অফ ভার্চু অ্যান্ড প্রিভেনশন অফ ভাইস মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র জানিয়েছেন, বিনোদন পার্কে ঢোকার অনুমতি মেয়েদের নেই।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক কাবুলের দুইটি পার্কের কর্তৃপক্ষ জানিয়েছেন, তাদের কাছে তালেবানের নির্দেশ এসে গেছে, মেয়েদের আর ঢুকতে দেয়া যাবে না।

তবে একটা বিষয় এখনো স্পষ্ট হয়নি, মেয়েদের বিনোদন পার্কে ঢোকার আলাদা দিন থাকবে কি না। আগে নিয়ম ছিল, সপ্তাহের কিছু দিন শুধু মেয়েরাই পার্কে ঢুকতে পারবে। এবারও সেই নিয়ম চালু হবে কি না তা তালেবান জানায়নি।

এর আগে তালেবান জানিয়েছিল, অন্তত একজন পুরুষ আত্মীয় ছাড়া মেয়েরা একা রাস্তায় বেরোতে পারবে না। বাইরে বেরোতে গেলে তাদের মুখ ঢেকে রাখতেই হবে।

মেয়েদের সমানে সরকারি চাকরি থেকে ছাঁটাই করা হয়েছে। শিক্ষা, স্বাস্থ্য ও কিছু ক্ষেত্রে পুলিশের চাকরিতে মেয়েদের রাখা হয়েছে। কারণ, সেখানে উপযুক্ত পুরুষ পাওয়া যায়নি। বাকি সব সরকারি চাকরি থেকে তাদের বাদ দেয়া হয়েছে।

গত মার্চে তালেবান জানিয়েছিল, শুধু মেয়েদের জন্য সেকেন্ডারি স্কুল খোলা হবে। কিন্তু পরে তারা সেই সিদ্ধান্ত থেকে পিছিয়ে যায়। এখনো সেই স্কুল খোলা হয়নি।

কাবুল ও অন্য শহরে নিজেদের অধিকারের দাবিতে মেয়েরা বিক্ষোভ দেখিয়েছেন। কিন্তু কড়া হাতে তাদের বিক্ষোভের মোকাবিলা করেছে তালেবান। মেয়েদের হত্যা করা হলেও অভিযুক্তের কোনো শাস্তি হয়নি।

গত অগাস্টে প্রকাশিত জাতিসংঘের রিপোর্টে বলা হয়েছে, আফগানিস্তানে মেয়েদের অবস্থা ক্রমশ আরো ভয়াবহ এবং নিরাশাজনক হচ্ছে। নারী ও অল্পবয়স্ক মেয়েদের আত্মহত্যার প্রবণতা বাড়ছে।