প্রভিশনিং বৃদ্ধি ও শেয়ার ব্যবসায় ধসে লোকসান গুণল এনআরবিসি ব্যাংক

বিজনেস আওয়ার প্রতিবেদক : শেয়ারবাজারে তালিকাভুক্তির পরেও ভালো ব্যবসা করে আসা এনআরবিসি ব্যাংকের চলতি বছরের দ্বিতীয় প্রান্তিকে (এপ্রিল-জুন ২০২২) ছন্দপতন হয়েছে। যে ছন্দপতন মুনাফা থেকে লোকসানে নিয়ে গিয়ে ঠেঁকিয়েছে। ওইসময় বড় প্রভিশনিং রাখা ও শেয়ার ব্যবসায় লোকসানের কবলে পড়ে ব্যাংকটির এমন হয়েছে।

এনআরবিসি ব্যাংকের সমন্বিতভাবে চলতি বছরের দ্বিতীয় প্রান্তিকে ৫ কোটি ১৩ লাখ টাকার নিট লোকসান হয়েছে। অথচ আগের বছরের দ্বিতীয় প্রান্তিকে নিট মুনাফা হয়েছিল ৫১ কোটি ২৩ লাখ টাকা। অন্যভাবে বললে আগের বছরের দ্বিতীয় প্রান্তিকের শেয়ারপ্রতি ০.৬৯ টাকার মুনাফা এবার লোকসান হয়েছে ০.০৭ টাকা।

ব্যাংকটির দ্বিতীয় প্রান্তিকে এই লোকসানের কারনে ৬ মাসের (জানুয়ারি-জুন ২০২২) ব্যবসায় মুনাফা নেমে এসেছে ৬০ কোটি ৮৩ লাখ টাকায় বা ইপিএস ০.৭৭ টাকায়। অথচ ব্যাংকটির প্রথম ৩ মাসেই মুনাফা হয়েছিল ৬৫ কোটি ৯৬ লাখ টাকা বা ইপিএস ০.৮৯ টাকা।

ব্যাংকটির মুনাফায় এই অধ:পতনের পেছনে প্রধান কারন হিসেবে রয়েছে সঞ্চিতির পরিমাণ বৃদ্ধি। এছাড়া শেয়ার ব্যবসায় মুনাফা থেকে লোকসানে নামাও অন্যতম কারন হিসেবে রয়েছে।

এনআরবিসি ব্যাংকের গত বছরের দ্বিতীয় প্রান্তিকের ব্যবসায় শুধুমাত্র ৫ কোটি ২৬ লাখ টাকার সঞ্চিতি গঠন করা হয়েছিল। যার পরিমাণ এবার ৫৮ কোটি ৭৪ লাখ টাকা রাখতে হয়েছে। অন্যদিকে শেয়ার ব্যবসায় আগের বছরের প্রথমার্ধে যেখানে ২৬ কোটি ১৮ লাখ টাকার মুনাফা হয়েছিল, সেখানে চলতি বছরের প্রথমার্ধে লোকসান হয়েছে ৪ কোটি ২২ লাখ টাকা।

ব্যাংকটির গত ৩০ জুন শেয়ারবাজারে তালিকাভুক্ত সিকিউরিটিজে বিনিয়োগের পরিমাণ দাঁড়িয়েছে ২৫২ কোটি টাকা। যার পরিমাণ আগের বছরের একই সময়ে ছিল ২২৭ কোটি ৫২ লাখ টাকা।

ব্যবসায় লোকসানের কারন হিসাবে এনআরবিসি ব্যাংক কর্তৃপক্ষ বাংলাদেশ ব্যাংকের ঋণ/বিনিয়োগের বিপরীতে সঞ্চিতি গঠনের নতুন নির্দেশনা ও শেয়ার ব্যবসায় মন্দাকে কারন হিসেবে ডিএসইকে জানিয়েছে। যা ডিএসইর ওয়েবসাইটে প্রকাশ করা হয়েছে।